দৈনিক মতামত

প্রতিভা বিকাশের অন্যতম মাধ্যম

স্বাস্থ্য-টিপস

১ মিনিটে ঘুমানোর সহজ উপায়

১ মিনিটে ঘুমানোর সহজ উপায়

পৃথিবীর সবচেয়ে আরম দায়ক মূহুর্ত হচ্ছে ঘুম। কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েও যদি ঠিক করে না ঘুমাতে পারি! জীবনটাকে ব্যর্থই মনে হয়। আমরা যারা চাকরী ও ব্যবসা বাণিজ্য করি সারা দিন ব্যস্ত থাকি।কর্মব্যস্ত দিনের শেষে রাত্রে খুব আশা নিয়ে বাসায় ফিরি যে,আজ টানা ৭/৮ ঘন্টা ঘুমাবো।পরের দিনের জন্য শরীরকে খুব চাঙা করে তুলবো। তবে চাইলেই কি সব হয়?বিছানায় সুয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা চলে যায় আর ঘুম আসে না।এদিক ওই চটপট করতে থাকি আবার কেউবা মুবাইল টিপে আর কেউবা গল্প পড়েই ঘন্টা গুলো পার করি।
তাহলে এর থেকে বাঁচার উপায় কি?দুশ্চিন্তা করবেন না,চিন্তা করলে ঘুম আরো কম হবে।দুশ্চিন্তা থেকে বাঁচার উপায়

আজকে পৃথিবীর সর্ব সেরা একটা টিপস দিবো যে ১ মিনিটের মধ্যেই ঘুমিয়ে যেতে পারবেন

১ মিনিটে ঘুমানোর সহজ উপায়

আর তা হলো এমন একটা শ্বাসক্রিয়ার অভ্যাস গড়ে তোলা যাকে গবেষকরা “”৪-৭-৮”” বলে।এটা হলো একটা সংক্ষিপ্ত রূপ। তাহলে এবার বিস্তারিত জানা যাক :- আপনি প্রথমে নাক দিয়ে ৪ সেকেন্ড শ্বাস নিবেন। তারপর ৭ সেকেন্ড শ্বাসক্রিয়া আটকিয়ে রাখবেন। আর আগামী আট সেকেন্ড মুখ দিয়ে আস্তে আস্তে করে শ্বাস- নিঃশ্বাস ত্যাগ করুন। যতক্ষণ পর্যন্ত ঘুম না আসে এভাবেই শ্বাসক্রিয়া চালান। বেশিক্ষণ না, মিনিট খানেকের মধ্যেই ঘুমিয়ে পড়বেন।ইনশাল্লাহ ।

এই গবেষণাটি করেছেন:-আন্তর্জাতিক লেখক ও ডক্টর অ্যান্ড্রু ওয়েইল।  লেখক আরো জানান যে এর ফলে হৃদপিণ্ডে কেমিক্যালের প্রভাব কমে যায়। আর তাতেই চটজলটি ঘুম এসে যায়।

*এ দিকে বিশিষ্ট লেখক “আলিনা গোঞ্জালেজ”এটা অস্বীকার করেন।এরপর চ্যালেঞ্জ মূলক ভাবে পরীক্ষা করতেই ট্রিকটা আমলে নেন।তিনি বলেন:-আমি প্রথম ৪ সেকেন্ড নাক দিয়ে শ্বাস নিয়েছি,তারপর ৭ সেকেন্ড শ্বাস আটকিয়ে রেখে আগামী আট সেকেন্ড আস্তে শ্বাস নিয়েছি।পরের দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে মনেই করতে পারলাম না শেষ আট সেকেন্ডের পর আর জেগেছিলাম কিনা? বা শেষ আট সেকেন্ড আসলে কি ঘটেছিলো?তিনি আরো বলে সেদিন এতটাই গভীর ঘুম এসেছিলো যে,মনে হয় এই টেকনিকটা যেন ড্রাগের মতো কাজ করল।

আপনাদের তার কথাগুলো বিশ্বাস হোক বা না হোক একবার ট্রাই করে দেখুন ৪-৭-৮। অথবা প্রথম দিন না হলেও কয়েকদিন চেষ্টা করুন।যদি একবার এ অভ্যাস্ত হতে পারেন,সারা জীবন কাজে লাগবে।

LEAVE A RESPONSE

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।